ভালোবাসার শক্তি

ভালোবাসার শক্তি কেমন হয়: ভালোবাসার গল্প পর্ব-২

ভালোবাসার শক্তি অনেকটা অদ্ভুত এটা আমরা সবাই জানি এটা জেনেই আমরা ভালোবাসা করি আবার অনেকের ভালবাসার শক্তি খুব ছোট খুব স্বাভাবিক কিন্তু সবার ভালোবাসা শক্তিটা এক না এটা আমরা সবাই জানি। আসলে ভালবাসার শক্তি দা কেমন এটা আমরা সবাই বুঝতে পারিনি তুমি কি বোঝো কিন্তু আমরা আবার বিভিন্ন সময়ে আমাদের শক্তি রাখে কাজে লাগাতে পারি না আমরা যেন হারিয়ে যাই অন্য কাস্টে অন্য রাজ্যে এটাই তো স্বাভাবিক।

শালা বিয়ের ভালবাসার শক্তি অনেক বেশি অনেক বিষয়ই এটা আমি নিমিষেই বুঝতে পারি এছাড়া আমার ভালবাসার শক্তি যে অনেকটা অদ্ভুত না এটাও না মেয়ে বুঝতে পারে আমার দুর্বল কোথায় এটাও লামিয়া বুঝতে পারে কিন্তু বুঝেও নামিয়ে কখনো আমাকে বুঝতে দেয়নি। আমি যদিও চাই না আমি আমার হোক কিন্তু বাস্তবায়নে আমার ভূমিকা একদমই কম আমি চাইলেই তো লামিয়াকে নিজের মতো করে মেনে নিতে পারি না কিভাবে নিব আমার জন্য কোন আমার হাতে নেই আমি একজন বেকার ছেলে কিভাবে ধনী পরিবারের মেয়েকে নিয়ে স্বপ্ন দেখে স্বপ্ন দেখে যাচ্ছি।

আজ আমার স্বপ্ন পূরণ হবে কিনা এ বিষয়ে আমি অনিশ্চিত হয়তো আমার স্বপ্ন পূরণ হবে না আবার হয়তো * হতেও পারে এ বিষয়ে আমি এখনো কমপ্লিটলি শিওর না তারপরও মন কি চাই বুঝাই মন তো ভালবাসার পথ বেছে নিয়েছে মন যাকে ভালবাসে তাকে তোর ভুলে থাকতে পারে না মন তো নিয়মিত তার মতোই ভালোবেসে যাচ্ছে।

লামিয়ার ভালোবাসার শক্তি কেমন?

ভালোবাসার গল্প

সত্যিকার অর্থে লামিয়ার ভালবাসার শক্তি অনেক না হলে এত দিন এত বছর ওর সাথে ভালোবাসার কোনো সম্পর্ক থাকার কথাই না। লামিয়া আমাকে প্রতি রাতে অনেক বেশি ভালোবেসে কাছে যান ডিজার্ভ করিনি সেটা আমার হয়ে যাচ্ছে ওর ভালোবাসায় হয়তো আমি নিজেকে পাল্টে ফেলেছি নিজেকে পরিবর্তন করে ফেলেছি আমি এখনো চাকরির খোঁজে নিয়োজিত রয়েছে কিন্তু নিয়মিত লামিয়ার বাসা থেকে বিয়ের জন্য চাপ প্রয়োগ করে যাচ্ছে।

আরো পড়ুনঃ  নিজেকে স্মার্ট রাখার কয়েকটি মাধ্যম!

ইদানিং লামিয়ার সাথে ঝগড়া হচ্ছে আমি এর বিয়ে নিয়ে কেন তুই বিয়ে করতেছিস না তোর কোন ছেলের সাথে যদি সম্পর্ক থাকে আমাকে জানা আমি ছেলের পরিবারের সাথে কথা বলব কিন্তু আমিও যদি আমার কথা জানায় তাহলে ওর বাবা কখনোই মেনে নেবে না কারণ আমি একটা বেকার ছেলে তাছাড়া আমার ফ্যামিলি মধ্যবিত্ত এটার কোন প্রশ্নই আসে না এটা ভেবে লামিয়া তার বাবার কাছে যানাচ্ছে না। লামিয়া আমাকে তার বাবার সাথে কথা বলার জন্য অনেকবার বলেছে কিন্তু আমি ওর বাবার সামনে গিয়ে কিভাবে দাঁড়াবো এটা ভেবে তুমি কখনো ওর বাবার সঙ্গে কথা বলিনি কিন্তু এটা হয়তো আমার শেষ ওয়ার্নিং হয়তো আমি আমার জীবন থেকে সরে যেতে পারে এরকম একটা মুহূর্ত চলে এসেছে কি করব বুঝতে পারছি না আমার ওরকম কোনো বেস্টফ্রেন্ড নাই কারো সাথে শেয়ার করার মতো নিজের মধ্যে যেন দুমড়ে-মুচড়ে খসখসে হয়ে যাচ্ছে।

কারো সাথে কারো সাথে শেয়ার করার মত কেউ নেই হয়তো আমার জীবনে একটা অনেক বড় পুনঃপরীক্ষা এটা আমি বুঝতে পারি কিন্তু বুঝতে পারলাম না কি করব বুঝতেছি না। আমি এক জায়গা কথা বললাম তাদের ওখানে কালকে সকালবেলা একটা ইন্টারভিউ রয়েছে প্রাইভেট কোম্পানির জব যদিও যোগ্যতা অনেক বেশি থাকতে হবে না আবার এডুকেশন যোগ্যতাও বেশি প্রয়োজন নেই কিন্তু আমার পর্যাপ্ত রয়েছে আশা করি আমার চাকরিটা হয়ে যাবে এটা ভেবে ভেবে রাত কাটিয়ে দিলাম সকালবেলা সবার কাছে বলে বাসা থেকে বেরিয়ে পড়লাম অফিসে চলে গেলাম বেশ একটা সময় বসে রইলাম তাদের বারান্দাতে।

অতঃপর তাদের এক পিয়ন এসে আমাকে মধ্যে ডাকল এবং আমার ইন্টারভিউ নিল আলহামদুলিলঃ ইন্টারভিউতে সবকিছু ঠিকঠাক হয়েছে তারা বলেছে আমাকে জানিয়ে দিব আমি বুক ভরা আশা নিয়ে বাড়ি চলে আসলাম অতঃপর তারা একদিন পরে ফোন দিয়ে জানালো যে আমার চাকরি হয়ে গিয়েছে আমিতো খুশিতে আত্মহারা সবার আগে আমার বাসার সবাইকে জানিয়ে আমি আর অপেক্ষা না করে আমি ওকে ফোন দিলাম।

আরো পড়ুনঃ  ভালো বয়ফ্রেন্ড হয়ে উঠার গুরুত্বপূর্ণ ৫ টি টিপস!

লামিয়া চাকরির খবর শুনে কি বলল?

সবাই যেন চাকরির খবর শুনে আত্মহত্যা এদিকে লামিয়াকে ফোন করেই যাচ্ছে কিন্তু ফোন তুলছে না কি করবো বুঝতে পারছিনা আমি আর অপেক্ষা করলাম না আমার খুশির আত্মহারা হয়ে চলে গেলাম না মেয়েদের বাসায় আমার একদমই খেয়াল ছিলনা আমি এখানে এভাবে আসলে আমার ক্ষতি হতে পারে কিংবা লামিয়ার ক্ষতি হতে পারে আমি অপেক্ষা করে বাসার মধ্যে চলে গেলাম এবং লামিয়াকে ডাক দিতে লাগলাম। অতঃপর আমি বুঝতে পারলাম লামিয়ার আব্বু সাড়া দিলো এবং পিছন থেকে এসে আমার সামনে দাড়িয়ে বলল কে তুমি?

এবার আমার ঠ্যাং ভাঙলো আমি বুঝতে পারলাম আমি যা করলাম সব কিছু ভুল হয়েছে আমার চোখের মুখের দিকে তাকিয়ে নানারকম নিমিষেই বুঝতে পেরেছি আমি প্রজন্মের মধ্যে রয়েছে আমাকে বলল বস ভয় পাওয়ার কিছু হয়নি তুমি লামিয়াকে কিভাবে চেনো? সত্যি কথা বলতে আমি কখনো মিথ্যা কথা বলি না আর মিথ্যে বলতে আমার অনেক বেশি কষ্ট লাগে তাই আমি মিথ্যে বলে মানুষের কাছ থেকে আড়াল করতে চাইনা কেননা আমি জানি একটা মিথ্যার জন্য হয়তো হাজার মিথ্যে বলতে হতে পারে।

আমি সব ঘটনা লামিয়ার বাবাকে খুলে বললাম তিনি আমার দিকে রাগান্বিত হয়ে তাকিয়ে আছে তিনি বলল তুমি একটা বেকার ছেলে কিভাবে এটা করতে পারো তাছাড়া তুমি তো শিক্ষিত কম নয় তুমি এটা কিভাবে করতে পারো তোমার মতো একটা শিক্ষিত ছেলের থেকে আমি এটা কখনো আশা করিনি তখন আমি বুঝিয়ে বললাম কেননা আমি বেকার না আমার চাকরি হয়েছে আমি সেই চাকরির সুখবর দিতেই কেবলমাত্র লাগিয়া খুঁজে আপনাদের বাড়ি।

আরো পড়ুনঃ  খুব সহজে স্মার্ট হওয়ার ৫ টি কার্যকর উপায়

ভালোবাসার শক্তি সত্যতা কতটা?

ভালোবাসার শক্তি

কত পড়ল আমি আর বাবা শান্ত হল এবং আমাকে বোঝাতে লাগলো যে দেখো তোমরা একটা মধ্যবিত্ত ফ্যামিলির ছেলে তার ছাড়া তুমি এত ভালো কোন চাকরি করো না যা আমার মন কেড়ে নিয়েছো আর তাছাড়া আমাদের সমাজ কখনই তোমার সাথে আমার মেয়েকে মেনে নেবে না যদিও আমি মেনে নিই কিন্তু আমাদের সমাজ মেনে নেবে না আমাদের দেশ মেনে নিবে না এটাই স্বাভাবিক থাকার মতো একটা ছেলের সাথে আমার এত কথা বলার প্রয়োজন হবে বলে আমি মনে করি না আশা করি তুমি বুঝতে পেরেছ আমি কি বলতে চাচ্ছি।

আমি বললাম হ্যাঁ আমি বুঝতে পেরেছি তবে বুঝতে পারলেও হয়তো আমার মন বুঝতে পারছে না। আমার চাকরির সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা আমারে পর্যন্ত সবকিছু কন্টিনিউ করার চেষ্টা সবকিছুর বিছানায় মাত্র হাত রয়েছে সে আচ্ছা লামিয়া। আমাদের ভালবাসার শক্তি টা ছিল অদ্ভুত আমরা কখনো নিজেদের মধ্যে ঝগড়া করিনি কখনো কোন অভিমান নিয়ে নিজেদের মধ্যে বসে থাকেনি আমরা সবসময় নিজেদের সত্যিটা প্রকাশ করতাম যার ফলে আমাদের সবকিছু ঠিকঠাক ছিল হয়তো সেটা সত্যতা প্রকাশ পাবে না। এটা বলে আমি ওদের বাড়ি থেকে বেরিয়ে চলে আসলাম শ্যামাপদ আমার জন্য খুব কষ্টের সামনের দিকে গেলাম।

‌ নিজের কাছে মনে হল সামনের দিকে যেন এগোতে পারছি না সবকিছু কষ্ট হচ্ছে বহুৎ এভাবে নিজের কষ্ট আড়াল করে সামনের দিকে এগোতে লাগলাম অতঃপর আমি আমার বাড়িতে চলে আসলাম কিন্তু আমার লাইফে চাকরি হলো এমন একটা সুসংবাদ পাওয়ার পরও আজকে আমার মনের এই অবস্থা দেখে পরিবারের সবাই নিজেদের খুশির ভাব নিমিষেই হারিয়ে ফেলেছে এবং সবাই আমাকে জিজ্ঞেস করতে লাগলাম আর কি হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *