টিকটক ব্যবহারে আসক্তি

টিকটক ব্যবহারে আসক্তি আমাদের

নতুন আরেকটি সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম বের হয়েছে রিসেন্টলি যেটার নাম হয়েছে টিকটক। টিকটক ব্যবহারে তরুণ-তরুণীদের মধ্যে আসক্তি বেড়েছে ৯০% যা আমাদের জন্য অনেক বেশি ঝুঁকিপূর্ণ। বর্তমানে তরুণ-তরুণীদের মধ্যে ঠিকঠাক ব্যবহার এর সংখ্যা বেড়ে গেছে কয়েক মিলিয়ন সমস্ত পৃথিবী জুড়ে পপুলারিটি লাভ করেছে। টিভিতে টিকটক এত ভাবে পপুলারিটি হয়েছে এত ভাবে মানুষের মাঝে বিস্তার লাভ করেছে যা বলে বোঝানো সম্ভব হচ্ছে না।

টিকটক ব্যবহারের ফলে মানুষের দিন দিন বেড়েই চলছে টিকটক ব্যবহারের আসক্তি মানুষকে অনেক বেশি নষ্ট করে দিচ্ছে বর্তমান তরুণ-তরুণীদের মধ্যে এই টিকটকের ব্যবহার প্রচন্ড বেড়ে গিয়েছে যার ফলে তরুণ-তরুণীদের মধ্যে মানসিকতার বিচারের মত একটা ব্যবস্থা হয়েছে। টিকটকের ব্যবহার ফলে তরুণদের মধ্যে অন্যরকম একটা উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে যেটা তরুণদের জন্য অনেক বেশি ভয়াবহ। তরুণদের এই ভয়াবহ আসক্তির জন্য আমাদের মাঝে রয়েছে বিপণন সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে কোন কিছুই কাজ করছে না।

টিকটক ব্যবহারে আসক্তি কেন?

টিকটক ব্যবহারে আসক্তি

টিকটক ব্যবহারে আসক্তি হওয়ার মূল কারণ হচ্ছে বর্তমান সমাজে অনেক দেশে বেকারত্ব করার জন্য এমন সমস্যা হচ্ছে।  বর্তমান সমাজের মানুষের মধ্যে যদি বেকারত্ব না থাকতো তাহলে এত বেশি সমস্যা হতো না। সমস্যার মূল কারণ হচ্ছে আমার চাকরি নেই আমি কোন কাজ করি না আমি কোন কাজ করার সুযোগ পাইনা। আজকে যদি তরুণ-তরুণীরা চাকরির মধ্যে থাকতে কোন একটা কাজের মতো ছাত্র তাহলে এই ধরনের সমস্যা গুলো মানুষকে পড়তে হতো না এমনকি এধরণের সমস্যা গুলোর মধ্যে তারাই করছে যারা কোনো জব করছে না কিংবা যারা কোন কাজের মধ্যে নেই।

টিকটক ব্যবহারের এই সমস্যার জন্য দায়ী কেবলমাত্র আমাদের সমাজ। যদিও এর জন্য রাষ্ট্র কোন রকম দায়ী নয় কেননা বর্তমানে বিভিন্ন সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম বিপিএল এর মাধ্যমে ব্যবহারযোগ্য যেমন কিছুদিন পূর্বে ফ্রী ফায়ার পাবজি এগুলো ব্যান করতে চাইলেও করতে পারেন কেননা এটা তথ্য মন্ত্রণালয় কিংবা দেশের কোনো সরকারের ধারা বন্ধ করা সম্ভব না যদি না এই কোম্পানি ব্যক্তিগতভাবে বন্ধ করে। আমাদের সমাজে এমন কিছু মানুষ রয়েছে যারা টিকটকের বিরোধিতা করতে চাই না কেননা এ বিরোধিতা করে মোটেও সফলতা হওয়া সম্ভব নয়।

আরো পড়ুনঃ  সঠিকভাবে স্মার্টফোন চার্জ করার নিয়ম!

টিকটকের এই আসক্তি আমাদের সমাজ এবং তরুণ-তরুণীদের মাঝে এত বেশি বিপণন যাওয়া বন্ধ করার মত সৌভাগ্য আমাদের খুবই কম মনে হচ্ছে।

টিকটক ব্যবহারে আসক্তি থেকে মুক্তি!

টিকটক ব্যবহারে আসক্তি

টিকটক ব্যবহারে আসক্তি এটা নতুন কিছু নয় মোটামুটি অনেক পুরাতন বলা যেতে পারে এই আসক্তি থেকে মুক্তি পেতে আপনাকে চেষ্টা করতে হবে সব সময় সঠিক নিয়মে সঠিকভাবে সবকিছু মেনে চলা। টিকটকের এই ভয়াবহ আসক্তি আপনার ভবিষ্যৎ শেষ করে দিতে দ্বিধাবোধ করবে না। টিকটকের এই ভয়াবহ আসক্তি আপনার জীবনকে নিমিষেই শেষ করে দিতে প্রস্তুত কেননা এটি থেকে কোন ইনকাম করা যায় না কিন্তু বর্তমান সমাজে তরুণ-তরুণীদের এত বেশি প্রচলন এই টিকটকের দিকে যা বলে বোঝানো সম্ভব না।

এখানে পাল্লা হচ্ছে কার ভিডিও তে কত ভিউ কার ভিডিও তে কত লাইক কমেন্ট আসে সে ব্যাপারে এমনকি এখানে নিয়মিত নিজের জীবনকে শেষ করে দিয়ে ভিডিও তৈরি করা হচ্ছে যেগুলো মানুষের জন্য অপ্রাসঙ্গিক খারাপ দিক উল্লেখ করে। এমন এমন ভিডিও টিক টকে প্রকাশ করা হয় যা এখানে লেখার মত ভাষা থাকেনা। টিক টক এমন ভিডিও প্রকাশ করা হয় পুরো উলঙ্গ অবস্থায় ভিডিও প্রকাশ করা হয় শুধুমাত্র ভিউ লাইক কমেন্ট ফলোয়ার্স পাওয়ার লোভে।

মূলত এই মহামারী ভয়াবহ টিকটক ব্যবহারে আসক্তি থেকে বের হতে হলে আমাদের নিজেদের ইচ্ছাশক্তি অনেক বেশি এবং সচল থাকতে হবে। আমাদের ইচ্ছাশক্তির যদি সচল না হয় সে ক্ষেত্রে আমাদের টিকটক ব্যবহারের অনুমতি তো খুব একটা কাজ করবে না। আপনার নিজের পরিচয় আপনার নিজের কষ্ট আপনার নিজের ব্যর্থতা কত বড় সেটা নির্ণয় করে এটা ব্যবহারের ফলেই।

আপনি ইচ্ছা করে নিজের ব্যক্তিগত ইচ্ছা দিয়েছেন আমি ঠিকঠাক ব্যবহার করব না যেখান থেকে ইনকাম করা যায় এমন একটা প্লাটফর্মে কাজ করব টিকটক বানানোর কাজে যে সময়টা ব্যয় করেন কিংবা টিকটক দেখে যেই সময়টা ব্যয় করেন এই সময়টা যদি কোন একটা কাজের পেছনে ব্যয় করেন তাহলে সিওর আপনি এখান থেকে প্রত্যেক মাসে ভালো একটা প্রফিট পাবেন এবং আপনার যোগ্যতা অনেক হাই লেভেলে উঠে যাবে আর টিক টক এর মত এরকম বাজে প্লাটফর্মে আপনার মোটেও আসক্তি হবে না।

আরো পড়ুনঃ  ব্যবহৃত মোবাইল কিনছেন না তো আপনি?

ধ্বংসের পথ টিকটক সব সময় খুঁজে দেয় তাই এই ধ্বংসের পথ থেকে নিজেকে নিজের পরিবারকে নিজের বন্ধু এবং ছোট ভাইকে রক্ষা করতে কেবলমাত্র আপনি পারেন। আপনি আপনার ফোনে টিক টক সফটওয়্যার কিংবা অ্যাপস রাখবেন না ঠিকঠাক ব্যবহারের ফলে আসক্তি হয় এটা আপনি জানেন তাই আপনার ফোনে না রাখলে আপনার ফোন থেকে কেউ ঠিকঠাক ব্যবহার করতে পারবে না এখানে বিভিন্ন মানুষ নিজেকে বিভিন্ন মানুষের সঙ্গে প্রমোট করার জন্য বিভিন্ন ধরনের ভিডিও প্রকাশ করে থাকে আমরা সেগুলো দেখব না এমনকি মানুষ ধরনের খারাপ খারাপ ভিডিও প্রকাশ করে থাকে যেগুলো মানুষকে কিংবা যুব সমাজকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যেতেও দ্বিধা বোধ করে না।

টিকটক ব্যবহারের ইনকাম!

টিকটক ব্যবহারে আসক্তি

টিকটক ব্যবহার করে ধরে ইনকাম আমরা পাই না সেটা ব্যবহারের ফলে আমাদের কোনো ইনকাম আসে না শুধুমাত্র সময় নষ্ট ছাড়া আর কিছুই না তবে টিকটক প্রতিষ্ঠান তারা ঠিকই আপনাকে ভিডিও দেখিয়ে ব্যক্তিগতভাবে ইনকাম করে নিচ্ছে তারা তাদের ভিডিওর মধ্যে বিভিন্ন অ্যাপ বা বিভিন্ন প্রমোশন করে নিচ্ছে কিন্তু সেটা আপনি বুঝতে পারছেন না। অর্থাৎ টিকটক কোম্পানি তাদের নিজস্ব লাভের জন্য আপনাকে একদম ফ্রিতে খাটাচ্ছে আপনি প্রতিনিয়তঃ এখানে ভিডিও আপলোড করে যাচ্ছেন সে ভিডিও গুলো মানুষ দেখছে কিন্তু এখান থেকে আপনি কোন ধরনের প্রফিট পাচ্ছেন না বরং টিকটক কোম্পানি নিজেরাই প্রফিট নিচ্ছে আপনার ভিডিওগুলো মাধ্যমে তাহলে কি আপনি টিক টক এর মত বাজে প্লাটফর্মে কাজ করবেন?

আমি আশা করব না টিকটকের মতো বাজে প্লাটফর্মে আপনি কখনোই কাজ করবেন না যেখান থেকে আপনার কোন ইনকাম নেই সেখানে আপনি কেন সময় নষ্ট করবেন সেখানে আপনি কেন রিক্স নিয়ে কাজ করবেন অনেক সময় আমরা দেখে থাকি টিকটক ভিডিও করার জন্য যারা বাসার ছাদে ভিডিও করে সেখান থেকে ভিডিও করতে করতে অনেক সময় অনেক তরুণ তরুণীরা পিছনে পড়ে যায় পুড়ে মারা যায় এমন প্রমাণ রয়েছে আবার ঠিকঠাক না করতে পেরে আত্মহত্যা করেছে এমন প্রমাণ রয়েছে তাই এমন একটা বাজে প্ল্যাটফর্ম কে বয়কট করার সময় আমাদের এখন এবং এটাকে বয়কট করা উচিত বলে আমি মনে করি।

আরো পড়ুনঃ  নিউজ পোর্টাল থেকে ইনকাম করা

আসলে ব্যক্তিগতভাবে আমি মনে করলেই এটা বয়কট হবে না এটা বয়কট করার জন্য আপনাদের সর্বোপরি সর্বোচ্চ চেষ্টা থাকতে হবে এবং একা থাকে যে কোন ইনকাম নেই সেটা আমরা সব থেকে ভালো জানি তাই আমাদের সে প্রচেষ্টায় কাজ করতে হবে। আপনি ঠিকঠাক এর পিছনে যে সময়ে ইনভেস্ট করে নামাজের সময় ব্যয় করেন সেই সময়টি যদি আপনি ইউটিউব কিংবা অন্যান্য সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মে ব্যবহার করেন যেখান থেকে ভালো একটা প্রফিট আসে তাহলে আপনার খারাপ হয় না।

টিকটকের মতো বাজে একটা প্লাটফর্ম ব্যবহারের ফলে আপনার সময় ইজ্জত বা মোবাইল সমস্যাসহ বিভিন্ন সমস্যা হতেই পারে কিন্তু আপনি যদি এই একই সময় ইউটিউব কিংবা ফেসবুকের পেছনে ব্যয় করেন কোন একটা ভিডিও তৈরি করার জন্য কিংবা কোন একটা কনটেন্ট তৈরি করার জন্য মানুষকে ভালোবাসে শেখানোর জন্য কিছু শেখার জন্য তাহলে আপনি কিছু শিখতে পারলে ভালো একটা ইনকাম আপনি করতে পারেন ভালো একটা প্রফিট প্যানেল এবং আপনার লাভবান আরো বেড়ে গেল।

আশা করি আপনারা বিষয়টি মাথায় রাখবেন। টিকটক বয়কট করার সময় আমাদের চলে এসেছে তাই আমরা জোয়ার যথাসম্ভব এই টিকটক নামের বাজে প্ল্যাটফর্মকে অবশ্যই দোয়া করব যাতে করে আমাদের ভবিষ্যৎ আরও উজ্জ্বল হয় যাতে করে আমাদের সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় না এই ব্যবহারের ফলে আমরা কত সমস্যার মধ্যে পড়তে চাই তা বুঝতে পারছি না কিন্তু আমাদের বুঝতে হবে এই সমস্যাগুলো থেকে আমাদের বের হতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *